কার্ডিং: ক্রেডিট কার্ড হ্যাক করতে চান ????

0
268

ক্রেডিট কার্ড হ্যাকিং বর্তমান সময়ের অন্যতম আলোচিত বিষয়গুলোর একটি। আজকের লেখাটিতে কার্ডিং এর বেসিক জিনিস নিয়ে আলোচনা করবো।

কার্ডি কী?

মূলত অন্যের ক্রেডিট কার্ড হ্যাক করে তা নিজ প্রয়োজনে ব্যবহার করাকে কার্ডিং বলা হয় এবং যারা এ কাজটি করেন তাদেরকে কার্ডার বলা হয়।

কার্ডাররা কি হ্যাকার ?

যেহেতু কার্ডিং হ্যাকিং এর এই একটা অংশ এবং এটা একটা বড় জায়গা জুড়ে আছে সুতরাং অবশ্যই কার্ডার রা হ্যাকার হিসাবে গন্য।

কার্ডিং করতে কি কি লাগবে ?

১. ভ্যালিড ক্রেডিট কার্ড নাম্বার

২. কার্ড এর পিন নাম্বার

৩. ব্যবহার কারীর নাম এবং কার্ডের মেয়াদ উত্তীর্নের তারিখ।

এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে ফেক আইডি কার্ড, ক্রেডিট কার্ড এর ফটো বানানো লাগতে পারে।

কিভাবে ক্রেডিট কার্ড হ্যাক করে কিনবা ঐ ইনফো গুলো পাওয়া যাবে ?

ক্রেডিট কার্ড হ্যাক করার অনেক পদ্ধতিই আছে। যেমন:

মূলত অনলাইন কমার্সিয়াল(অনলাইন সপ, অনলাইন ব্যাংক ইত্যাদি) সাইটগুলো হ্যাক করে তার ডাটাবেজ থেকে ক্রেডিট কার্ড এর তথ্য পাওয়া যায়। আপনারা অনেকেই অনলাইনে ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে বিভিন্ন জিনিস কেনাকাটা করেন। তো যে সাইট থেকে জিনিস কিনেন সেই সাইটের ডাটাবেজে পন্য ক্রয়ের সময় যে ইনফো দেওয়া হয়ে থাকে তা সংরক্ষিত খাকে। তো যখন কোনো হ্যাকার ঐ সাইটের ডাটাবেজে এক্সেস নেয় সে ঐখান থেকে ঐ তথ্য গুলো নিয়ে নিতে পারে।

(বি:দ্র: বর্তমানে ভালো সাইট গুলোতে ক্রেডিট কার্ডের ইনফো Encrypt করে রাখা হয়)

আসুন এবার হ্যাক করা একটা ক্রেডিট কার্ড দেখি :

EARL MCCRACKEN

Address :

47 East Laurel Street

Port Reading,New Jersey 07064

United States (1)

Phone :

732 – 4234230

E-mail :

[email protected]

MASTER CARD-5129925196082757 239

Expiration Date:

7/1/2017

ক্রেডিট কার্ড ইনফো পেয়েছেন এখন কার্ডি করবেন কিভাবে ?

আসলে এর কোনো ধরা বাধা সিস্টেম নেই, এক একটি সাইটের সিকিউরিটি এক এক রকম থাকে তাই বাইপাস পদ্ধতিও এক এক রকম হয়। আপনাকে সাইটটি নিয়ে গবেষনা করে বের করতে হবে কিভাবে আগাবেন তা।

এবার কিছু কার্ডিং এর ব্যবহার দেখানো হলো:

মনে রাখবেন এটা করা অপরাধ আর এটি করার সাজাও অন্য সাইবার অপরাধগুলো থেকে বেশী। সুতরাং যা ই করবেন সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করবেন। আর ভিপিএন এর সাথে RDP সার্ভার ব্যবহার করবেন এতে কার্ডিং নিখুত এবং আপনিও নিরাপদ থাকতে পারবেন।

স্কাইপ এর ক্রেডিট ক্রয় করা যায় যা দিয়ে ফ্রিতে কথা বলতে পারবেন:


বিভিন্ন সফটওয়্যার কিনবা এন্টিভাইরাস কিনতে পারবেন :

ক্যাস্পারস্কি এন্টিভাইরাস:
এছাড়া্র বিভিন্ন চ্যারিটি তে দান করতে পারবেন কিনবা বিভিন্ন অনলাইন সপ থেকে মোবাইলে টাকা রিচার্জ কিনবা বিভিন্ন পন্য যেমন, মোবাইল, ল্যাপটপ ইত্যাদি অর্ডার করতে পারবেন।

physical পন্য অর্ডার করলে একটা ড্রপিং প্লেস লাগবে। এটি হলো পন্য ডেলেভারী এর জায়গা যেখানে আপনার পন্যটি আসবে। কখনোই নিজের ব্যক্তিগত ঠিকানা কে ড্রপিং প্লেস হিসাবে ব্যবহার করবেন না।

যাইহোক, কার্ডিং করার সময় সর্বোচ্চ সর্তকতা অবলম্বন করবেন।

আপনাদের সারা কম পাচ্ছি তাই লেখা পাবলিস করাও কমিয়ে দিয়েছি, জেগে উঠুন নিত্য নতুন টিউটোরিয়াল পেতে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here