এবার আনলিমিটেড ইন্টারনেট চালাবেন আপনিও! জেনে নিন BTCL ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট নেয়ার সম্পূর্ন প্রক্রিয়া (বিস্তারিত টিউন)

0
358

আসসালামু আলাইকুম।আশা করি সবাই ভালো আছেন।

আমরা সবাই আনলিমিটেড ইন্টারনেট চাই,আর এই কারনে অনেকসময় হয়ত আমরা বিভিন্ন লোকাল আইএসপি (ISP= Internet Service Provider) এর কাছে দ্বারস্হ হই।অনেক সময় হয়ত তাদের কাভারেজ এর অভাবে বা অন্যান্য সীমাবদ্ধতার কারনে লাইন পাইনা আবার লাইন পেলেও ঠিকমতন সার্ভিস পাই না; এই সমস্যা সেই সমস্যা,সার্ভার নস্ট,তার ছিড়ে গেছে,তার চুরি করছে ইত্যাদি ইত্যাদি।

এমন সমস্যা আমারও ছিল।তাই আমার চোখে এর সুন্দর একটি বিকল্প হল বিটিসিএল এর বিকিউব ব্রডব্যান্ড সেবা।

এটি মূলত BTCL ADSL ইন্টারনেট সার্ভিস।এখানে আপনার বাসার টেলিফোন তারের (তামার তার) মধ্যে দিয়ে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়া হয়।মনে করছেন তামার তারের মধ্যে আবার ইন্টারনেট,স্পীড তো পাওয়া যাবেই না,ইন্টারনেট চলবে কিনা সন্দেহ!! হ্যা এমনটি আমিও ভাবতাম,তবে আমার এই ভাবনা মিথ্যা প্রমানিত হয়েছে তখন যখন আমি আমার বাসায় BTCL এর ইন্টারনেট সংযোগ লাগাই। আমি মূলত Bcube-Infinity1000 অর্থাত তাদের ১mbps প্যাকেজটি লাগাই।এটা সত্য যে আপনি কিনতু কখনই ব্রাউজিং সম্পূর্ন ১mbps স্পীড পাবেন না কম পাবেন।তবে যে স্পীড পাবে তা দিয়ে অনায়াসএই কম্পিউটার এ বা অন্য কোন ডিভাইস এ ইন্টারনেট ব্রাউজিং, আপলোড,ডাউনলোড করতে পারবেন সহজভাবে বোঝার জন্য বলি, ইউটিউবে ভিডিও স্ট্রিমিং করতে কোন প্রকার বাফারিং হয় না,এর থেকেই সহজেই আপনারা এর স্পীডটি আচ করতে পারছেন।

বিভিন্ন প্যাকেজ :

Bcube Infinity (256kbps) = 300 taka

Bcube Infinity (512kbps) = 500 taka

Bcube Infinity (1 Mbps) = 700 taka

Bcube Infinity (1.5 Mbps) = 1000 taka

এখানে মোটামোটি স্পীড পেতে আমি ২ ও ৩ এই দুটি প্যাকেজ নেয়ার কথা বলব।আর যদি গেমিং এর জন্য নেন তাহলে ৪ নং প্যাকেজ নেয়া ভালো।আর প্রতিটি প্যাকেজ এর ওপর ১৫% ভ্যাট দিতে হবে।

সংযোগ নেয়ার ক্ষেত্রে প্রথমে দেখতে হবে আপনার এলাকায় এই সার্ভিসটি আছে কিনা, এখান থেকে দেখে নিন

দ্বিতীয়ত আপনার দেখতে হবে আপনার পূর্ব থেকে বাসায় টেলিফোন সংযোগ আছে কিনা; না থাকলে নতুন করে নিতে হবে।

এরপর বিটিসিএল এর অফিস থেকে ইন্টারনেট সংযোগ নেয়ার জন্য উপরের মতন ফর্ম সংগ্রহ করতে হবে।
ফর্মটি সুন্দরভাবে পূরন করে তারপর সেটা আপনার নিকটস্হ বিটিসিএল এক্সচেঞ্জ অফিস এ জমা দিতে হবে।আর আগে থেকে টেলিফোন লাইন থাকলে পরিশোধিত বিল এর সত্যয়িত কপিও জমা দিতে হবে।এবার তারা আপনাকে ২-৩ দিনের ভেতর একটি ডিমন্ড নোট দিবে,এবং আপনাকে সেই ডিমান্ডনোট গুলো নিয়ে নির্ধারিত ব্যাংকে ৪৬০ টাকা জমা দিতে হবে।তারপর ব্যাংক আপনাকে ডিমান্ড নোট এর দুটি কপি দিবে তারপর জমাদানের একটি কপি আপনাকে এক্সচেঞ্জ অফিসে এবং আরেকটি কপি আপনাকে নিজের কাছে রাখতে হবে।

এবার আপনাকে অপেক্ষা করতে হবে ২-৩ দিন আইডি পাওয়ার জন্য,এরপর আইডি আপনাকে ফর্মে দেওয়া নম্বরে sms করে দেওয়া হবে।

সেটাপ:

এখন বিটিসিএল অফিস এ যেয়ে বা তাদের ফোন করে এ বিষয়ে জানাতে হবে,আর তারপর সেখান থেকে ১-২ দিনের ভেতর লোক এসে আপনার ইন্টারনেট সেটাপ করে দেবে। এর পূর্বে আপনাকে রাইটার বা মডেম কিনে রাখতে হবে।আপনি চাইলে BTCL এর কাছ থেকেও রাউটার বা মডেম কিনতে পারবেন এই জন্য ডিমান্ড নোট এর সাথে আপনাকে রাউটার এর টাকাও দিতে হবে।

লাইন ড্রপ এর যে সমস্যা টি আছে তা বর্তমানে অনেক কমে গেছে।এটি তেমন কিছু না মাসে হয়ত এক দুবার ২-৪ ঘন্টার জন্য কানেকশন প্রবলেম হতে পারে এই আর কি।

আশা করি সকলের টিউনটি ভালো লেগেছে,কোন কিছু জানানোর থাকলে টিউমেন্ট এ জানান। ব্যস্ততথার জন্য পোষ্ট করতে পারি না তাই হঠাৎ আজ,  সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন এই প্রত্যাশায় নিচ্ছি আমি আনামুল ইসলাম।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here