google photos assistant কি? এটি আপনাকে কিভাবে সাহায্য করতে পারে?

1
1249

আস সালামু আলাইকুম, আশা করি সবাই ভাল আছেন। আলহামদুলিল্লাহ, আমিও ভাল আছি। google photos assistant বর্তমানে সব এন্ড্রয়েড ফোন এবং ট্যাবেই রয়েছে। এমনি এটা আপনার আইফোন বা আইপ্যাডেও রয়েছে। কিন্তু আপনি কি এটা ব্যবহার করেন?

জীবনের ব্যস্ততম সময় পার করছি এখন। ব্যস্ততা আমাকে ঘিরে ফেলেছে। আসলে জীবনের ধর্মটাই এমন । ব্যস্ততার মাঝে থাকতে থাকতেই হয়ত আমাদেরকে এক সময় পাড়ী জমাতে হবে পরপাড়ে। যাইহোক , তাই ব্যস্ততার মাঝেও পরকালের জীবনের জন্য আমাদের কিছু করা উচিত। যাইহোক, কথা আর বাড়াবো না। সরাসরি চলে যাবো আজকের টপিক্সে।

আমার মনে হয় অধিকাংশ মানুষ এটা ব্যবহার করেন না। কারণ এটার ভিতরে কি আছে সেটা তারা বুঝে না। এমনকি সেটা বুঝার জন্য গুগল ফটোস ওপেন করারও সময় তাদের হয় না। তাই আপনি যদি এই ফটো এসিস্ট্যান্ট ব্যবহার না করে থাকেন তাহলে অবশ্যই আপনি অনেক ফিচার ব্যবহার করা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। এটি একটি ভার্চুয়াল এসিস্ট্যান্ট যা আপনার স্টোরেজ এর উপর কোনো চাপ প্রয়োগ করে না।

আপনি কেন গুগল ফটোস ব্যবহার করবেন

কোনো জিনিস ব্যবাহার করার পূর্বে কেন শব্দটা ব্যবহার করবেন। কারণ কি জন্য ব্যবহার করবেন একটা এপ্স? যদি না ই জানেন তার ব্যবহার বা উপকারিতা? তবে প্রথমেই গুগল ফটোসের নোটিফিকেশন ডিজেবল করে দিতে হবে। তাহলে মজা পাবেন। তো আরও কি কি ফিচার আছে একটু বিস্তারিত জেনে নিই।

  • Manage your photos
  • Edit your photos
  • Create photo albums
  • Create GIFs from your photos
  • Make polished movies
  • Put together a photographic collage
  • Make albums, GIFs, movies and collages while you sleep
  • Manage space on your device
  • Provide photo fixing suggestions
  • Group photos with facial recognition

তো চলুন দেখে নিই কিভাবে এলবাম, এনিমেশন , মোভি এবং কোলাজ তৈরি করবেন?

এসিস্ট্যান্সের মাধ্যমে আপনি ফটো এলবাম তৈরি, gif এনিমেশন , মোভি তৈরি এবং ফটো কোলাজ তৈরি করতে পারবেন। এর জন্য প্রথমেই আপনাকে এপ্স টি ওপেন করতে হবে। এরপর মেনুতে চাপ দিন সেটিং>>> assistant cards এ যান ।এরপর New creations এ চাপ দিয়ে এটাকে enable করে দিন। এরপর থেকে আপনি কার্ড এবং নোটিফিকেশন পেতে থাকবেন যখনই assistance আপনার জন্য নতুন কিছু তৈরি করবে। তবে এ কাজগুলো আপনি ম্যানুয়ালিও করতে পারবেন। নোটঃআপনি যদি এসিস্ট্যান্স ব্যবহার করতে চান তাহলে আপনার অবশ্যই নেট কানেশন লাগবে।

 

চলুন একটি ফটো এলবাম তৈরি গুগল এসিস্ট্যান্ট এর মাধ্যমে

যখন আপনার স্মার্টফোনটি ছবিতে ভরে আছে তখন আপুনার কোনো প্রিয় ছবি খুঁজে বের কর অনেক কঠিন।তাই না? আপনি চাইলে আপনার ছবিগুলো গুগল ড্রাইভে এলবাম বা গ্রুপ  আকারে রাখতে পারবেন  এন্ড্রয়েড এসিস্ট্যান্ট এর মাধ্যমে ।

google photos on android albumsআপনার ছবির ডেট  এবং লোকেশন অনুযায়ী অটোমেটিক অ্যালবাম তৈরি করে দিবে এন্ড্রয়েড এসিস্ট্যান্ট যখন আপনি ঘুমিয়ে পড়বেন। মানে অটোমেটিক এলবাম তৈরি হয়ে যাবে আপনি টেরই পাবেন না। এছাড়া আপনি বিশেষ স্থান বা বিশেষ দিন অনুযায়ীও চাইলে গ্রুপ করে রাখতে পারেন।

google photos assistant album

যদি আপনি এসিস্ট্যান্টকে আপনি নিজের মত করে কন্ট্রোল করতে চান তাহলে আপনি এসিস্ট্যান্ট বাটনে ক্লিক করুন যেটা নিচের দিকের বাম পাশের কোনায় থাকবে। এরপর Album এ ক্লিক করুন। create Album স্ক্রিনে ইমেইজগুলো সিলেক্ট বা যুক্ত করুন যেগুলো আপনি এক এলবামে রাখতে চান। এরপর create এ ক্লিক করুন।

খুব সহজেই তৈরি করুন Gif এনিমেশন

চমৎকারভাবে আপনার এই এসিস্ট্যান্ট gif এনিমেশন তৈরি করে দিবে আপনার ছবির উপর ভিত্তি করে। অন্যান্য ক্রিয়েশন এর মত যখন মোট্মুটি একটু ভাল মানের এনিমেশন তৈরি হয়ে যাবে তখন এটি আপনাকে একটা পপআপ দেখাবে।

google photos assistant animations

ভাল কোয়ালিটির মোভি তৈরি করুন এসিস্ট্যান্ট দিয়ে

গুগলের এই ফটো এসিস্ট্যান্ট আপনাকে আপনার ছবি এবং রিসেন্ট মোভি ক্লিপ দিয়ে তৈরি করে দিবে দারুন কোয়ালিটির মোভি। সাধারণত এটি ডেট অনুযায়ী সাবজেক্ট তৈরি করে। এবং এগুলো একেবারেই ছোট। তবে আপই চাইলে ক্লিপ ইডিট করতে পারবেন এবং কোন ছবির পর কোন ছবি হবে তা নির্ধারন করে দিতে পারবেন। এছাড়াও আপনি মোভি স্টাইল এবং সাউন্ডট্র্যাক চেঞ্জ করা যাবে।

google photos assistant movies

এটা কিছুটা জটিল তবে একটু শিখে নিলেই তেমন কিছু না।

কোলাজ তৈরি করুন খুব সহজেই

সর্বশেষ ক্রিয়েটিভ ট্রিক হচ্ছে এই এসিস্ট্যান্ট এর মাধ্যমে ফটো collages তৈরি। অন্যান্য প্রজেক্টের মতই এটি ছবি নেয়ার সময় এবং ডেট ও লোকেশনের উপর ভিত্তি করে কোলাজ তৈরি করে। আপনার ফোন যখন স্ট্যান্ডবাই মোডে থাকে তখন এটি তৈরি হবে।

google photos assistant collage

আপনি নিজের মত করে কোলাজ তৈরি করতে চাইলে আপনি প্রথমেই এসিস্ট্যান্ট এ ঢুকুন এরপর collage এ যান । এরপর কোন ছবিগুলো দিয়ে কোলাজ তৈরি  করতে চান সেগুলো সিলেক্ট করে দিন। এরপর create এ ক্লিক করে ক্রিয়েট করে ফেলুন।

আপনার ফটো ক্রিয়েশন উপভোগ করুন

যখন আপনার প্রজেক্ট ক্রিয়েট করা শেষ হবে আপনি সেগুলো আপনার ফোন এবং গুগল ড্রাইভে উভয় স্থানে দেখতে পারবেন। আপনার এই ক্রিয়েশন শেষ হলে আপনি বিভিন্ন আলাদা অপশন পাবেন। এছাড়া এটি ব্যবহার করে ওয়্যারলেস স্ট্রিমিংও করা যাবে সম্ভবত ক্রোম কাস্ট বা একই ধরণের ডিভাইসের ক্ষেত্রে

আপনার স্টোরেজকে বাঁচান/রক্ষানাবেক্ষণ করুন

যেহেতু সকল ছবি গুগল ড্রাইভে চলে যাবে তাই পরবর্তীতে যখন মেমরি ফুল হয়ে যাবে তখন আপনি যদি ফোনের সব ছবি ডিলিট করে দেন তাহলেও প্রব্লেম হবে না। কারণ সবগুলোকে গুগল ড্রাইভেই পাঠিয়ে দিবে .

google photos assistant storage google photos assistant archive

Download: Google Photos for Android (Free)
Download: Google Photos for iOS (Free)

যাইহোক , অনেক কথাই তো বললাম । কিছু ভুল হয়ে থাকলে কমেন্টে জানাবেন ।

আজকের মত বিদায় নিতে হবে। বিদায় না নিলেও আবার রাগ করবেন। তাই সব সময় পোস্টের শেষে আপনাদের কাছ থেকে এইভাবেই বিদায় নিই।তো দেখা হচ্ছে পরের টীউনে।

ততক্ষণ পর্যন্ত ,” ভাল থাকুন , সুস্থ থাকুন, প্রযুক্তিকে ভালবাসুন। আর প্রযুক্তির সাথেই থাকুন।”

আল্লাহ হাফিজ।

এক্সেল এর ফর্মুলাগুলোর জন্য হেল্প প্রয়োজন? দেখিয়ে দিচ্ছি ৭টি রিসোর্স

1 COMMENT

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)