হুন্ডি বন্ধ হবে, রেমিটেন্স বাড়বে: জয়

0
544

অবশেষে দেশে অনলাইনে অর্থ আদান-প্রদানের বিখ্যাত মাধ্যম পেপ্যালের জুম সেবার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয়েছে। এ সেবার উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় বলেছেন, ‘প্রবাসীরা বিভিন্ন চ্যানেলে তাদের কষ্টের অর্থ দেশে পাঠাচ্ছেন। এতে যেমন খরচ বেশি হচ্ছে, তেমনি বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন। জুম সেবা চালুর মাধ্যমে এখন থেকে তারা সহজেই পেপ্যাল অ্যাকাউন্ট থেকে বাংলাদেশে দ্রুত টাকা পাঠাতে পারবেন। ফলে হুন্ডির পরিমাণ কমবে। দেশে রেমিটেন্স বাড়বে।’

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘বাংলাদেশ আইসিটি এক্সপো-২০১৭’ এর দ্বিতীয় দিনে জুম সেবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হয়। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের আগে বেশ কিছুদিন ধরে পরীক্ষামূলক সেবা চলাকালে এর মাধ্যমে প্রায় আট কোটি টাকা দেশে এসেছে।

অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পর দুই হাজার ফ্রিল্যান্সার অংশ নেয়। তাদের মধ্যে ১৬ জনকে পুরস্কৃত করা হয়।

প্রাথমিকভাবে যুক্তরাষ্ট্রের পেপ্যাল অ্যাকাউন্টধারী ব্যক্তি ৪০ মিনিট থেকে দুই ঘণ্টার মধ্যে নিরাপদে বাংলাদেশে নির্দিষ্ট ব্যক্তির অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠাতে পারবেন। যুক্তরাষ্ট্রের সোনালী ব্যাংকের আটটি শাখার মাধ্যমে দেশে অর্থ পাঠানো যাবে। প্রতিবার সর্বোচ্চ ১০ হাজার ডলার পাঠানা যাবে। প্রতি লেনদেনে এক হাজার ডলার পর্যন্ত চার দশমিক ৯৯ ডলার ফি লাগবে। এক হাজারের বেশি লেনদেনের ক্ষেত্রে বাড়তি ফি দিতে হবে না। সোনালী ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, অগ্রণী ব্যাংক, জনতা ব্যাংক, সোস্যাল ইসলামী ব্যাংক, উত্তরা ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক, সিটি ব্যাংক ও ইসলামী ব্যাংকের মাধ্যমে বাংলাদেশে পেপ্যালে আসা টাকা তোলা যাবে। ধীরে ধীরে অন্যান্য দেশ এই সেবায় যুক্ত হবে।

ফ্রি-ল্যান্সাররা অর্থ লেনদের সুবিধার জন্য দীর্ঘদিন থেকে দেশে পেপ্যালের সেবা চালুর দাবি জানিয়ে আসছিলেন। সরকারও এ বিষয়ে উদ্যোগী ছিল। এরই ধারাবাহিকতায় চলতি বছরের এপ্রিলে সরকারের একটি উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিদল যুক্তরাষ্ট্রে পেপ্যালের সদরদফতরে প্রতিষ্ঠানটির সঙ্গে বৈঠক করে। পরে পেপ্যালের কার্যালয়ে এ সংক্রান্ত চুক্তি সই করে সোনালী ব্যাংক। এরই ধারাবাহিকতায় গত মে মাসে দেশে পরীক্ষামূলকভাবে পেপ্যালের জুম সেবা চালু করে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকটি।

অনুষ্ঠানে জয় বলেন, ‘বিদেশে থাকা এক কোটি ১৮ লাখ প্রবাসী গত অর্থবছরে প্রায় ১৩ বিলিয়ন ডলার দেশে পাঠিয়েছেন। এর বাইরে হুন্ডির মাধ্যমে কত টাকা এসেছে তার কোনো হিসাব নেই। এখন পেপ্যাল চালু হওয়ায় দ্রুত টাকা পাঠানোর সুবিধার কারণে প্রবাসীরা আর হুন্ডি করবেন না। রেমিটেন্স এবং ফ্রি-ল্যান্সারদের যে আয় হুন্ডির মধ্য দিয়ে আসত তা বন্ধ হয়ে যাবে। দুর্নীতি বন্ধ হবে।’ এতে রেমিটেন্স বাড়বে বলে আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রীর এই উপদেষ্টা।

পেপ্যাল ইন্টারনেটভিত্তিক বিশ্বের সবচেয়ে বড় পেমেন্ট ব্যবস্থা। জুম তাদের একটি বিশেষ সার্ভিস। ২০১৫ সালে পেপ্যাল জুম কিনে নেয়। ওই বছর শেষ দিকেই কয়েকটি ব্যাংকের মাধ্যমে বাংলাদেশে জুমের সেবা চালু হয়। বেশ কিছুদিন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর বৃহস্পতিবার এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হলো। আপতত জুমের মাধ্যমে বিদেশ টাকা পাঠানো বা দেশের বাইরে বিল পরিশোধ, ইন্টারনেটে কেনাকাটা বা হোটেল বুকিংয়ের সুবিধা পাওয়া যাবে না।

এ নিয়ে সমালোচনার বিষয়ে অনুষ্ঠানে জয় বলেন, ‘পেপ্যাল দিয়ে টাকা পাঠানো যাচ্ছে না কারণ বাংলাদেশ ব্যাংকের আইনে তা নিষিদ্ধ। অর্থপাচার রোধে এমন নীতিমালা রয়েছে। তবে ভবিষ্যতে বাংলাদেশের অর্থনীতি যখন উন্নত দেশগুলোর সাথে পাল্লা দিতে পারবে, তখন টাকা পাঠানোরও সুযোগ তৈরি হবে।’

চলতি বছরের মধ্যে ফোর-জি চালু হবে জানিয়ে জয় বলেন, “২০১৮ সালের মধ্যে দেশের সব ইউনিয়নকে ‘ইনফো সরকার ৩’ প্রকল্পের আওতায় ফিক্সড ব্রডব্যান্ডের আওতায় আনা হবে।’ তিনি ইন্টারনেটের দাম প্রতিবছর কমানোর আশ্বাস দেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘পেপ্যালের সেবা চালু ফ্রি-ল্যান্সারদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল। আজকের উদ্বোধনের মাধ্যমে তাদের সেই দাবি পূরণ হলো। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মতো বাংলাদেশেও আপাতত পেপ্যালের জুম সার্ভিসের মাধ্যমে অর্থ পাঠাতে পারবেন প্রবাসীরা। ফ্রিল্যান্সাররাও তাদের টাকা তুলতে পারবেন।’

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির বলেন, ‘জুম সেবার মাধ্যমে প্রবাসীরা কম খরচে দ্রুত সময়ে দেশে অর্থ পাঠাতে পারবেন। একইসঙ্গে ফ্রিল্যান্সাররাও তাদের অর্জিত অর্থ দেশে আনতে পারবেন।’

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ইমরান আহমেদ বলেন, ‘জুম সেবা চালুর ফলে দেশে রেমিটেন্স আরও বাড়বে।’

আইসিটি সচিব সুবির কিশোর চৌধুরী বলেন, ‘সরকারের লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্প থেকে ১৩ হাজার তরুণকে ফ্রি-ল্যান্সিংয়ে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে। তাদের মধ্যে ৮ হাজার তরুণ বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে কাজ করছেন। এই ফ্রি-ল্যান্সারদের অর্থ সহজে দেশে আনার জন্য পেপ্যালের জুম সেবা চালু করা হলো।’

উল্লেখ্য, ভারত, নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কাসহ বিশ্বের ২০৩টি দেশে পেপ্যালের জুম সেবা চালু রয়েছে। এর মধ্যে মাত্র ২৯টি দেশে  পূর্ণাঙ্গ সেবা চালু আছে। আর ১০৩টি দেশে চালু রয়েছে শুধু ইনবাউন্ড সেবা। বর্তমানে প্রায় ১৪ কোটি ৭০ লাখ ব্যবহারকারী পেপ্যালের মাধ্যমে ২৬টি দেশের মুদ্রায় অর্থ লেনদেন করতে পারেন।

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)