বিপিএলের সিলেট পর্বের হিসাব-নিকাশ

0
546

এবারই প্রথম বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) আসর বসেছিল সিলেটে। মোট আটটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলের জেলাটিতে। আটটি ম্যাচের চারটিতেই খেলেছে সিলেট সিক্সার্স। তিনটি ম্যাচ জিতে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে রয়েছে বিপিএলের নবাগত দলটি। সিলেট পর্বে রাজশাহী কিংস বাদে সবকটি দলই জয় পেয়েছে। তাই পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে রয়েছে ড্যারেন স্যামি-মুশফিকুর রহিমের রাজশাহী। আসুন, দেখে নিই বিপিএলের প্রথম পর্ব শেষে বিস্তারিত হিসাব-নিকাশ।

দলগুলোর অবস্থা : চারটি ম্যাচের তিনটিতে জিতেছে সিলেট। ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলে সবার ওপরে নাসির হোসেনের দল সিলেট সিক্সার্স। রাজশাহী বাদে সব দল একটি করে ম্যাচে জিতেছে। তবে রানরেটে এগিয়ে থেকে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস। পরের নামগুলো যথাক্রমে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, রংপুর রাইডার্স, চিটাগং ভাইকিংস ও খুলনা টাইটানস।

সবচেয়ে বেশি রান : সিলেট পর্বটা নিজেদের করে নিয়েছে সিক্সার্সরা। সেরা রান সংগ্রাহকারীর তালিকায় প্রথম দুটি নামই এই দলের ব্যাটসম্যানদের। চার ম্যাচে তিনটি হাফ সেঞ্চুরিসহ ১৯৬ রান করেছেন উপুল থারাঙ্গা। ১৫১ রান করে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন আন্দ্রে ফ্লেচার। দুই ম্যাচে ১১৮ রান নিয়ে তৃতীয় স্থানে লুক রঞ্চি। ৯৫ ও ৯২ রান করে চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে রয়েছেন দুই ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান মারলন স্যামুয়েলস ও এভিন লুইস। সেরা পাঁচে নেই কোনো বাংলাদেশি ক্রিকেটার। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের মালিক লুক রঞ্চি (৭৮)।

সবচেয়ে বেশি ছক্কা : এবারের টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত ১১৮ রান করেছেন লুক রঞ্চি, যার মধ্যে ১০৪ রানই বাউন্ডারি থেকে করেছেন এই ব্যাটসম্যান। টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ ১০টি ছক্কার মালিকও তিনি। আটটি ছয় নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন আন্দ্রে ফ্লেচার। ক্যামেরন দেলপোর্ট হাঁকিয়েছেন ছয়টি ছক্কা। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের মধ্যে চারটি ছক্কা মেরেছেন মোহাম্মদ মিঠুন।

সবচেয়ে বেশি উইকেট : ব্যাটসম্যানদের তালিকায় বাংলাদেশি কেউ না থাকলেও বল হাতে টাইগার বোলাররা অবশ্য দারুণ করেছেন। টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ছয়টি উইকেট নিয়েছেন ইংলিশ পেসার লিয়াম প্লাঙ্কেট। পাঁচ উইকেট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন তাইজুল ইসলাম। আবুল হাসান রাজুও নিয়েছেন পাঁচটি উইকেট। চার উইকেট নিয়েছেন ডোয়াইন ব্রাভো। এ ছাড়া তিনটি করে উইকেট নেওয়া বোলারদের তালিকায় রয়েছেন মোহাম্মদ শফিউদ্দিন, আবু হায়দার রনি, তাসকিন আহমেদ, নাসির হোসেন, শুভাশীষ রায়, শফিউল ইসলাম, কেসরিক উইলিয়ামস ও জসুয়া আর্চার।

সেরা বোলিং ফিগার : টুর্নামেন্টে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশি বোলাররা দারুণ খেলেছেন। সেরা পাঁচটি বোলিং বিশ্লেষণের চারটিই বাংলাদেশি বোলারদের। সবচেয়ে সেরা বোলিং ফিগারটি আবু হায়দার রনির। খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে মাত্র ১৩ রানে তিন উইকেট নেন তিনি। টাইটানসের বিপক্ষেই ১৯ রানে তিন উইকেট নেন সিলেটের তাইজুল ইসলাম। রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ২২ রানে তিন উইকেট সিলেটের অপর বোলার আবুল হাসান। চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে ২৪ রানে তিন উইকেট নেন কুমিল্লার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন।

সেরা জুটি : সিলেটে আটটি ম্যাচের তিনটিতে শতোর্ধ্ব রানের জুটি হয়েছে, যার দুটিই করেছেন সিলেটের ব্যাটসম্যানরা। টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ ১২৫ রানের জুটি বেঁধেছেন আন্দ্রে ফ্লেচার ও উপুল থারাঙ্গা (১২৫)। ঢাকার বিপক্ষে এই রান করেন তাঁরা। এ ছাড়া খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে ঢাকার ক্যামেরন দেলপোর্ট ও এভিন লুইস করেন ১১৬ রান।  রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ১০১ রান করেন সিলেটের থারাঙ্গা-ফ্লেচার জুটি।

সবচেয়ে বড় জয় : ঢাকা ডায়নামাইটসের দেওয়া ১৩৭ রানের জবাবে মাত্র এক উইকেট হারিয়ে জয় নিশ্চিত করে সিলেট সিক্সার্স। রানের হিসাবে সবচেয়ে বড় জয়টা ঢাকা ডায়নামাইটসের। খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে ৬৫ রানের জয় পায় সাকিব আল হাসানের দল।

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)