উদ্বোধন করা হল যশোর শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্কের

0
962

দেশের দক্ষিণাঞ্চলে তথ্যপ্রযুক্তি কাজের উন্নয়নে গড়ে তোলা শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কের দ্বার খুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হাইটেক পার্কটির উদ্বোধন ঘোষণা করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, তথ্যপ্রযুক্তিকে তৃণমূল পর্যায়ে নিয়ে যেতেই আমরা দেশে এমন হাইটেক পার্ক নির্মাণের সিদ্ধান্ত নিই। আমরা সবসময় চেয়েছি প্রযুক্তিকে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিতে। এর উন্নয়নের সুফল প্রতিটি মানুষের কাজে লাগাতে।

তিনি বলেন, যশোর সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক শুধু নয়, আমরা প্রতিটি জেলায় পর্যায়ক্রমে এমন প্রযুক্তিভিত্তিক হাইটেক পার্ক গড়ে তুলবো। এসব হাইটেক পার্কে যেসব তথ্যপ্রযুক্তি নিয়ে কাজ করা হবে সেগুলো রপ্তানি করা হবে

পার্কটি উদ্বোধন উপলক্ষ্যে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, বঙ্গবন্ধু বলতেন ঢাকা মানেই বাংলাদেশ নয়। সেই কথাটিকে সত্য করতেই তার কন্যা শেখ হাসিনা দেশের বিভিন্ন জায়গায় তথ্যপ্রযুক্তিকে ছড়িয়ে দিচ্ছেন। তিনিও ভোলার চর কুকরি-মুকরির এক ইউনিয়নের মাধ্যমেই দেশে ডিজিটাল ইউনিয়ানের কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। এছাড়াও যশোরকে প্রথম ডিজিটাল জেলা ঘোষণা করেছিলেন।

তিনি বলেন, বটম অাপ পলিসির জন্যই প্রধানমন্ত্রীর যে দর্শন তার জন্য এখন আর তরুণদের ঢাকায় এসে জুতা ক্ষয় করতে হবে না। এখন যশোরেই প্রযুক্তির ডিজিটাল হাব খুলে দিয়েছেন শেখ হাসিনা সফওয়্যার টেকনোলজি পার্ক তৈরি করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সচিব সুবীর কিশোর চৌধুরী।

গত মাসেই হাইটেক পার্কটির নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণরূপে শেষ হয়েছে। ২০১০ সালের ২৭ ডিসেম্বর দক্ষিণ বঙ্গকে তথ্যপ্রযুক্তি খাতে সম্পৃক্ত করতে যশোরের জনসমাবেশে যশোরে একটি আইটি পার্ক নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছিলেন সেটি আজ খুলে দেওয়া হলো।

পার্কটির প্রকল্প পরিচালক তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের যুগ্ম সচিব জাহাঙ্গীর আলম জানান, শেখ হাসিনা সফটওয়্যার পার্কটিতে ইতোমধ্যে ৫৫টি প্রতিষ্ঠানকে জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। যেখানে কাজ শুরু করেছে পাঁচটি প্রতিষ্ঠান। এখন ১২ প্রতিষ্ঠান তাদের অফিস সজ্জার কাজ করছে। অন্য প্রতিষ্ঠানগুলো কাজ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

এর আগে ৫ অক্টোবর সফটওয়্যার পার্কে চাকরি মেলা করেছিল তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ। সেখানে ৩০টি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। হাজার হাজার তরুণ এদিন পার্কে চাকরির জন্য তাদের জীবনবৃত্তান্ত জমা দেন। সেখান থেকে বাছাই করে প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পছন্দের প্রার্থীদের চাকরি দেবে। পার্কটিতে সবমিলিয়ে প্রায় ১২ হাজার লোকের কর্মসংস্থান হবে।

শেখ হাসিনা সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কটি নির্মিত হয়েছে যশোর শহরের বেজপাড়া এলাকায়। ১৫ তলা বিশিষ্ট ভবনটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় ২৪১ কোটি টাকা। মোট জায়গার পরিমাণ দুই লাখ ৩২ হাজার বর্গফুট। প্রতিটি ফ্লোরে ১৪ হাজার বর্গফুটের জায়গা রয়েছে।

পার্কটিতে স্টার্টআপরাও বিনামূল্যে তাদের উদ্যোগ এগিয়ে নেওয়ার জন্য জায়গা পাবে।

পার্ক উদ্বোধনের সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সে যশোর সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক চত্ত্বর থেকে একজন শিক্ষক, দুজন শিক্ষার্থী, দুজন আইটি প্রফেশনাল এবং বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম।

প্রয়োজনীয় হলে পোস্টটি শেয়ার করুন।
ধন্যবাদ, itdoctor24.com এর সাথেই থাকুন।

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)