সুনীল গাভাস্কারের সমালোচনার কঠিন জবাব দিলেন মাশরাফি

0
313

বিডিমর্নিং স্পোর্টস ডেস্ক–

ভারতীয় সাবেক ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কারের সমালোচনার কঠিন জবাব দিয়েছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা।

দেশের এক শীর্ষ দৈনিক পত্রিকাকে মাশরাফি জানিয়েছেন,’কে কি বলেছে তাতে আমার কিছু যায় আসে না। বাইরের কেউ যা ইচ্ছা বলতে পারে। আমি বাংলাদেশের জন্য খেলি। বাংলাদেশের মানুষ কী বলল, শুধু সেটাই আমার কাছে গুরুত্বপূর্ণ।’

চলতি টি২০ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হারার পরই মাশরাফি বিন মুর্তজার অধিনায়কত্ব নিয়ে তুলেছেন ভারতীয় সাবেক ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কার।

সুনীল গাভাস্কার বললেন, ‘দলে মাশরাফির কাজটা কি! আজ ও মাত্র এক ওভার বল করেছে। ব্যাট করার প্রয়োজনই আসেনি। তাহলে দলে মাশরাফির ভূমিকা কি? অধিনায়কত্ব? আচ্ছা, এবার ও এই একটা কাজও ঠিক ঠাক মত করতে পারলো না!’

তার এমন সমালোচনায় বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকেরা ক্ষুব্ধ হয়েছিলো।অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলোতে শুরু হয় পাল্টা সমালোচনার ঝড়।

গাভাস্কারের সেই কথার পাল্টা জবাব দিয়েছিলেন বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ফ্র্যাঞ্চাইজির কর্ণধার নাফিসা কামাল।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তিনি গাভাস্কারের বক্তব্যের প্রতিবাদ করে লিখেছেন, ‘মাশরাফির ম্যাজিকের অভিজ্ঞতা কোন গাভাস্কার কিংবা কোন সমালোচকের নেই, তাই তারা দলে মাশরাফির জায়গা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারেন না। আমি ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে থেকে বলতে পারি, সেই ম্যাজিকটা আমি দেখেছি, অনুভব করেছি, বিশ্বাস করেছি, আর এর মধ্য দিয়েই চ্যাম্পিয়ন হয়েছি। আর এর পুরো কৃতীত্বটাই অধিনায়কের।’

মাশরাফি বিন মর্তুজার নেতৃত্বেই গত দেড়-দুই বছর নিজেদের ক্রিকেট ইতিহাসে সেরা সময় পার করছে বাংলাদেশ। তার আশ্চর্য জাদুকরী নেতৃত্ব দিয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেটকে বদলে দিয়েছেন। তার কথা জানে ক্রিকেট বিশ্বও। কি ভাবে দলকে সর্বস্ব উজাড় করে দিতে হয় তা মাশরাফির  চেয়ে ভাল কেউই জানে না।তাই তো নেতা হিসাবে মাশরাফির করছে প্রশংসা ক্রিকেট বিশ্ব।

টাইগারদের দলপতিকে নিয়ে এমন সমালোচনায় মেতে উঠা গাভাস্কার ভারতকে নেতৃত্ব দিয়ে কতটুকু সফল ছিলেন তা দেখে নেওয়া যাক।

ভারতকে সাদা পোশাকে গাভাস্কার নেতৃত্ব দিয়েছিলেন ৪৭ ম্যাচ। যেখানে তার অধীনে দল জিতেছে ৯ বার আর হেরেছে ৮ বার। বাকি ৩০ টি ম্যাচ ড্র করে ভারত। টেস্টে গাভাস্কারের অধিনায়ক হিসেবে সাফল্যের হার শতকরা ১৯.১৪। মাশরাফি ইনজুরির কারণে টেস্টে খুব একটা ম্যাচ খেলেননি। তবে, টাইগারদের সাদা পোশাকের একটি ম্যাচেই নেতৃত্ব দিয়ে সেই ম্যাচে জয় পাইয়ে দিয়েছিলেন ম্যাশ।

ওয়ানডেতে গাভাস্কার ৩৭ ম্যাচে ভারতকে নেতৃত্ব দিয়ে দলকে জেতাতে পেরেছিলেন ১৪ ম্যাচে। আর তার নেতৃত্বে ভারত হেরেছিল ২১টি ম্যাচে। বাকি দুইটি ম্যাচে কোনো ফল আসেনি। যেখানে তার সাফল্যের হার শতকরা ৪০। পক্ষান্তরে মাশরাফি ওয়ানডেতে টাইগারদের ২৮ ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন। তাতে লাল-সবুজরা জিতেছে ২০ ম্যাচে আর হেরেছে মাত্র ৮টি ম্যাচে। এখানে ম্যাশের সফলতার হার শতকরা ৭১.৪২। টাইগারদের ২১টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাশরাফি নেতৃত্ব দিয়েছেন। তার মাঝে ৯টি ম্যাচেই শেষ হাসি বাংলাদেশের। মাশরাফির অধীনে ১১টি ম্যাচ হারলেও ম্যাশের সফলতার হার শতকরা ৪৫ (একটি ম্যাচ পরিত্যক্ত)।

মাশরাফির নেতৃত্বেই বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে খেলেছে । দেশের মাটিতে ভারত, পাকিস্তান,দক্ষিণ আফ্রিকা, জিম্বাবুয়েকে সিরিজ হারিয়েছে লাল-সবুজরা। এশিয়া কাপের আসরেও নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত মাশরাফি তার দলকে ফাইনালের মঞ্চে তুলেছিলেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here