বিষণ্নদের পাশে গুগল

0
381

বিষণ্নতায় ভুগছেন এমন ব্যক্তিদের সাহায্য করার জন্য নতুন একটি সুবিধা চালু করেছে গুগল ইনকরপোরেটেড। যেখানে গুগল সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে যাঁরা ডিপ্রেশন বা ক্লিনিক্যাল ডিপ্রেশন সম্পর্কে তথ্য খুঁজবেন, তাঁদের জন্য বেশ কয়েকটি প্রশ্নসমৃদ্ধ একটি পরীক্ষা দিতে পরামর্শ করা হবে—যা নির্ধারণ করবে বিষণ্নতার মাত্রা এবং পেশাদারি কোনো সাহায্যের দরকার পড়বে কি না। বিষয়টি গুগল এক ব্লগ পোস্টে জানিয়েছে। তবে আপাতত সুবিধাটি যুক্তরাষ্ট্রেই সীমাবদ্ধ।

গুগল সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে যাঁরা এ-সংক্রান্ত তথ্য খুঁজবেন, তাঁরা পর্দার ওপরের দিকে একটি ঘর দেখতে পারবেন। যেখানে বলা থাকবে, ‘পরীক্ষা করে দেখুন আপনি চিকিৎসাগতভাবে বিষণ্ন কি না।’ ‘পিএইচকিউ-৯’ নামের এই পরীক্ষাটি চিকিৎসাগতভাবে যাচাই করা। যেখানে স্বাস্থ্য সম্পর্কে ৯টি প্রশ্ন করা হবে। এর মধ্যে কর্মশক্তি, ক্ষুধা বা খাবারের রুচি, একাগ্রতার মাত্রা এবং অন্যান্য প্রশ্ন রয়েছে। গুগল এ-সম্পর্কে বলেছে, যেহেতু প্রশ্নগুলো বেশ সংবেদনশীল এবং গোপন, তাই উত্তরগুলো সংরক্ষণ করা হবে না।

গুগল এ কাজটি ন্যাশনাল অ্যালায়েন্স অন মেন্টাল ইলনেস বা ন্যামির সঙ্গে যৌথভাবে করছে। ন্যামির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ম্যারি গিলিবার্টি বলেন, পিএইচকিউ-৯-এর ফলাফল বিষণ্নতায় ভুগছেন এমন কারও সম্পর্কে চিকিৎসককে নির্দিষ্টভাবে জানাতে সাহায্য করবে। বিষণ্নতা প্রতি পাঁচজনে একজন আমেরিকানের জীবনে কঠিনভাবে প্রভাব ফেলছে। ন্যামির তথ্য অনুযায়ী, বিষণ্নতার জন্য কোনো পেশাদারি সাহায্য নেওয়ার আগে এ-সংক্রান্ত লক্ষণ প্রকাশ পেতে গড়ে ছয় থেকে আট বছর লেগে যায়।

গিলিবার্টি নতুন এই সুবিধার মূল উদ্দেশ্য সম্পর্কে বলেন, ‘আমরা আশা করছি যেহেতু গুগলে এ-সম্পর্কে তথ্য পাওয়া যাচ্ছে, তাই ব্যবহারকারীরা বিষণ্নতা সম্পর্কে আরও সচেতন হবেন এবং জীবনের মান বাড়াতে প্রয়োজনে চিকিৎসা নিতে পারবেন।’ সম্প্রতি এক গবেষণায় জানা গেছে, আমেরিকায় গত ১০ বছরে শিশু ও কিশোর-কিশোরীদের মাঝে আত্মহত্যার পদক্ষেপ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার হার দ্বিগুণ হয়েছে। আর তা বিষণ্নতার কারণেই হচ্ছে।

সূত্র: সিএনএন

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)