গ্রাফিক্স ডিজাইন স্টুডিও [পর্ব-০১] :: নতুন গ্রাফিক্স ডিজাইনার যারা আছেন আপনাদের জন্য, আপনিও গড়তে পারেন মাসিক দুই হাজার ডলার ইনকামের ক্যারিয়ার

0
428

আসসালামু আলাইকুম,

সবাই ভালো আছেন আশা করি। আল্লাহ্‌র অশেষ রহমতে আবারো  ফিরেছি নতুন একটি টিউন নিয়ে।  আশা করছি আপনাদের ভাল লাগবে। টেকটিউনস কে ধন্যবাদ আমাকে টিউন করার সুযোগ দেওয়ার জন্য। টেকটিউনসে এটা আমার গ্রাফিক্স ডিজাইন বিষয়ক প্রথম টিউন। গ্রাফিক্স ডিজাইন বিষয়ক একটি মানসম্মত ও পূর্ণাঙ্গ  টিউটোরিয়াল করে যাচ্ছি ধারাবাহিক ভাবে, যেখানে থাকছে শক্তিশালী –

  • 1. Photoshop
  • 2. Illustrator
  • 3. Adobe In design এর কোর্স (টোটালি ফ্রী) শুধু মাত্র টেকটিউনস এর ভিজিটরদের জন্য।

আজকে যেহেতু প্রথম দিন, এজন্য আজকে ফটোশপ বা ইলাস্ট্রেটর নয়, অন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে লিখছি, যে কাজটি আপনার ফ্রীলান্সিং এর শুরুর দিকে করতে হয়।

ভূমিকাঃ

প্রতিটা ফ্রীলান্সারের উচিত নিজের একটা শক্ত অবস্থান বা পোর্টফোলিও তৈরী করা। গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসেবে ক্যারিয়ার গড়তে হলে শুধু আপওয়ারক কে ফোকাস করলে বোকামির কাজ হবে। কারন যেকোন সময় মার্কেটপ্লেস আপনার সাধের প্রোফাইলটি চিরজীবনের জন্য সাসপেন্ড করে দিতে পারে। এ ছাড়া আপনি Upwork এর পাশাপাশি মার্কেট প্লেসের বাইরে থেকে প্রচুর কাজ পেতে পারেন।

পোর্টফোলিও কি?

মনে করুন আপনি একজন মুদি দোকানদার। আপনার দোকানে সব ধরনের মালামাল, যেমন – চাল, ডাল, তেল, শ্যাম্পু, স্নো ইত্যাদি ইত্যাদি অনেক কিছু আছে। এখন আপনি যদি সেটা দোকানে তাক বানিয়ে সুন্দর করে সাজিয়ে সাজিয়ে না রেখে, সব মাল বস্তায় ভরে রাখেন, তাহলে কি আপনার একটা মালও বিক্রি হবে? না, কোনো দিন সম্ভব না।

ঠিক তেমনি ভাবে আপনি একজন ফ্রীলান্সার বা গ্রাফিক্স ডিজাইনার। কিন্তু আপনার কোনো দোকান নাই, আপনার সব ডিজাইন আপনার পিসির ফোল্ডারে যত্ন করে রাখা আছে। আরে মশাই, তাহলে আপনার কাস্টমার বা ক্লাইন্ট জানবে কি করে যে আপনি কি কাজ পারেন?

উপরের উদাহরনে দোকান নামের যে শব্দটা বোঝাতে চেয়েছি, তাকেই পোর্টফোলিও বলে।

বিভিন্ন বড় বড় ওয়েবসাইট ঘুরে এবং সফল ব্যক্তিদের কথায় যা স্পষ্ট তা হলো আপনার মার্কেট প্লেসের বাইরে একটা শক্ত পোর্টফোলিও বা দোকান অবশই বানাতে হবে। নিজের একটা ওয়েবসাইট খুলে আপনার করা সেরা ডিজাইন গুলো সেখানে সাজিয়ে রাখবেন। আর যদি এস ই ও পারেন, তাহলে এস ই ও করে সাইট টা দাড় করাতে কোনো বাধা নাই। কারন এখান থেকে প্রচুর ক্লায়েন্ট আপনাকে কাজ দিবে।

কি ভাবছেন? আপনার ওয়েবসাইট ডিজাইন / এস ই ও জানা নাই বা ডোমেইন কেনার টাকা নাই? ভাই, তাহলে Behance.net আছে কেনো? বিহেন্স ডট নেট এ আপনার ফ্রী পোর্টফোলিও সাজাতে পারেন। কারন বাড়তি সুবিধা হচ্ছে এখানেও প্রচুর লং টার্ম কাজ পাওয়া যায়। এমনকি মার্কেটপ্লেসের চেয়েও বেশি মুল্যের কাজ পাওয়া যায়। অনেক চেনা যানা মানুষ পেয়েছি যারা শুধু Behance থেকে মাসে ২০০০ ডলার এর বেশি কাজ পায়।

আজকে দেখাবো কিভাবে Behance.Net এ একাউন্ট খুলতে হয় এবং ফাইল আপলোড করতে হয়ঃ

এখানে ক্লিক করে এই প্রোফাইলটি এক পলক দেখে নিন। কিছুটা হলেও একটু ধারনা হলো নাকি? ওকে চলুন এবার আপনার টা তৈরি করে ফেলি।

যেভাবে Behance এ প্রোফাইল তৈরি করবেন?

এখানে ক্লিক করে  বিহেন্সের এর ওয়েবসাইটে প্রবেশ করুন। তার পর Sign Up এ ক্লিক করে একটি Adobe একাউন্ট   Create করে নিবেন। পাসওয়ার্ড দিবেন একটি শক্ত ওয়ার্ড। যেমন @abj+*62D, তা না হলে Sign Up করতে ঝামেলা হবে। লগিন ও পাসওয়ার্ড দুইটাই ডাইরিতে বা কোথাও লিখে রাখবেন, না হলে ভুলে যাবেন।

তার পর প্রোফাইল পিকচার দিয়ে একাউন্ট তথ্য পূরন করে অবশেষে আপনার পোর্টফলিও যোগ করবেন।

প্রতিদিন যে কাজ গুলো করবেন, সেটা সাথে সাথেই বিহেন্সে আপলোড করতে থাকবেন। এভাবে দিন দিন আপনার ফলোয়ার, ভিউ, লাইক বাড়তে থাকবে। এক থেকে দুই বছর পর আপনার প্রোফাইলের চেহারা পালটে যাবে। (তবে রাতারাতি সম্ভব নয়)

যেভাবে ফাইল বা পোর্টফলিও এড করবেনঃ

উপরের ছবির মত Add work এ ক্লিক করে আপনার ছবি গুলো যোগ করুন।

এবার উপরের ছবির ৩ টা ধাপ ১- আপলোড ২- আপলোড ও টাইটেল ৩- প্রজেক্ট ডিটেইলস দিয়ে সেভ করে পাবলিশ করে দিন।

এভাবে প্রতিনিয়ত নতুন কিছু ডিজাইন করার সাথে সাথে সেটা আপনার বিহেন্স প্রোফাইলে এড করে দিবেন। দেখবেন আপনি সঠিক সময়ের মধ্যেই ফেমাস হয়ে যাবেন আর ডলার আসতে থাকবে ম্যাসেজে। 😛

আজকের মত এখানেই বিদায় নিচ্ছি, আগামী দিন থেকে আমরা কাজের জন্য প্রস্তুত হবো ইনশাল্লাহ।

যেকোনো সমস্যা / সাজেশন / পরামর্শ দিতে বা নিতে আমার সাথে যোগাযোগ করুন ফেসবুকে http://www.facebook.com/AppleGraphicStudio

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)