সিনেমায় কার কত পারিশ্রমিক -জেনে নিন।

0
496

আপনার প্রিয় নায়ক কিংবা নায়িকা প্রতি ছবির জন্য কত পারিশ্রমিক হাকান? এটা কি জানা আছে? না থাকলে জেনে নিতে পারেন। ঢালিউডের ভিলেনরাও যে কম জান না। বর্তমান সময়ে যারা সিনেমা নির্মাণ করেন এমন কয়েকজন পরিচালক প্রযোজকের সঙ্গে যোগাযোগ করে এ হিসেব মেলানো হয়েছে। নায়ক-নায়িকা-ভিলেনরাও তাদের হাঁড়ির খবরের আঁচ দিয়েছেন। উল্লেখ্য, মেয়েদের কাছে বয়স জানতে চাইলে যেমন তারা বিব্রত হন ঠিক তেমনি অভিনয়শিল্পীরাও পারিশ্রমিকের কথা তুললে সংকোচ বোধ করেন। না জানানোর অনেক কারণও দেখান তারা।

শাকিব খান

বলার অপেক্ষা রাখে না সিনেমায় পারিশ্রমিকের দিক থেকে কে এগিয়ে আছে। ২০০৬ সাল থেকেই শাকিবের পারিশ্রমিকের উদ্ধগতি শুরু হয়। দুই লাখ পারিশ্রমিক থেকে বর্তমানে পঞ্চাশ লাখ পর্যন্ত পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন। মাঝখানে নিজেই পারিশ্রমিক কমিয়েছিলেন। বিভিন্ন প্রযোজক ও পরিচালকের অনুরোধের পরিপ্রেক্ষিত্রে ৩৫ লাখ করেছিলেন। কিন্তু তখন বছরে ছবি করতেন ১০-১২ টি। বর্তমানে বছরপ্রতি বড়জোর চারটি সিনেমায় অভিনয় করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সে হিসেবে পারিশ্রমিক ৫০ লাখ পর্যন্ত তুলেছেন।

আরেফিন শুভ

সিনেমার শুরুতে দুই থেকে চার লাখ পর্যন্ত সম্মানী নিতেন। বর্তমান সময়ে তা আট থেকে দশ লাখ পর্যন্ত হয়েছে।

বাপ্পি

বর্তমান সময়ে শাকিব খানের পরের আসনে যাদের নাম আসে। তাদের মধ্যে অন্যতম বাপ্পি। ২ লাখ থেকে তার পারিশ্রমিক শুরু হয়। বর্তমানে ১০ লাখ পর্যন্ত ছবি প্রতি নিয়ে থাকেন।

সাইমন

২০১০ সালে দেড়লাখ টাকা ছবি প্রতি পারিশ্রমিক নিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। বর্তমানে ছবি প্রতি পাঁচ লাখ পর্যন্ত নিচ্ছেন এ অভিনেতা।

ফেরদৌস

একটা সময় তার পারিশ্রমিক ১৮ লাখ পর্যন্ত হয়েছিল। কিন্তু তা কমে পাঁচ লাখ পর্যন্ত হয়েছে। বর্তমানে উল্লেখযোগ্য কোন সিনেমা তার হাতে নেই।

আনিসুর রহমান মিলন

দুই লাখ টাকা থেকে তার পারিশ্রমিক শুরু হলেও বর্তমান সময়ে চার লাখ পর্যন্ত তিনি নিয়ে থাকেন।

চঞ্চল চৌধুরী

‘আয়নাবাজি’ ব্যাপক ব্যাবসাসফল হওয়ার পর তার পারিশ্রমিক বর্তমানে ছবি প্রতি ৪ লাখে উত্তীর্ন হয়েছে।

নীরব

প্রথমদিকে দুইলাখ টাকায় অভিনয় করতেন। বর্তমান সময়ে তা চার লাখ হয়েছে বলে জানা যায়।

নায়িকাদের দৌড়:

অপু বিশ্বাস

শাকিবের সঙ্গে দীর্ঘদিন জুটি ছিল অপু বিশ্বাসের। তখন হিট নায়িকাও ছিলেন। তবে ক্যারিয়ারের খুব ভালো সময় যাচ্ছে বলা চলে না। কোন সময় তার পারিশ্রমিক আট লাখ টাকা পর্যন্ত দেয়া হলেও বর্তমানে তা কমে পাঁচ লাখ হয়েছে। বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ফের অভিনয়ে ফেরার কথা রয়েছে তার। আর সেখানে কমপক্ষে এমন সম্মানী দাবি করছেন তিনি। উল্লেখ্য নায়িকা হিসেবে তার প্রথম ছবির সম্মানী ছিল ৩ লাখ টাকা।

মাহিয়া মাহি

দেড় লাখ পারিশ্রমিক দিয়ে ঢালিউডের শুরুটা। একটা সময়ে নায়িকাদের শীর্ষে চলে যান। তখন ৮ থেকে ১০ লাখ পর্যন্ত হাকান এ নায়িকা। তবে বর্তমান সময়ে পাঁচলাখের নিচেও রাজি হচ্ছেন।

বিদ্যা সিনহা মিম

বিদ্যা সিনহা সাহা মীমের পারিশ্রমিক হুহু করে বেড়ে চলেছে। ছবি প্রতি নাকি বর্তমান সময়ে আট লাখ টাকা পর্যন্ত নিয়ে থাকেন এ সুন্দরী।

পরীমণি

প্রথম থেকে তার পারিশ্রমিক তিন থেকে পাঁচলাখ পর্যন্ত। তবে যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘রক্ত’র জন্য নাকি তার পারিশ্রমিক উঠেছিল দশলাখ টাকা। পরবর্তীতে সেটা অব্যাহত রাখতে পারেননি। চারলাখে ফিরে এসেছেন এ নায়িকা।

ববি

অনিয়মিতভাবে সিনেমায় দেখা যাচ্ছে। তবে তার পারিশ্রমিক নাকি এ সময়ে ছয় লাখ টাকা।

জয়া আহসান

দুই বাংলাতে সমানতালে অভিনয় করছেন তিনি। পাঁচ থেকে আট লাখ পর্যন্ত ছবি প্রতি তার পারিশ্রমিক।

নুসরাত ফারিয়া

বর্তমান সময়ে তার পারিশ্রমিক পাঁচ লাখ টাকা।

বাংলা সিনেমার খল চরিত্র:

সিনেমার মন্দ মানুষের আয়টাও কম নয়। এ সময়কালে ভিলেন হিসেবে সবচেয়ে এগিয়ে আছেন মিশা সওদাগর। তিন থেকে বছর দুই হলো বেড়ে পাচঁ লাখ টাকা ছবি প্রতি উপার্জন হয়েছে তার। ওমর সানী ২ রাখ পর্যন্ত পারিশ্রমিক নিয়ে থাকেন। রুবেলের হিসেবও প্রায় একই। গত বছর একটি ছবির জন্য সর্বশেষ ২ লাখ টাকা নিয়েছিলেন। এরপর আর কোন ছবিতে দেখা যায়নি। অমিত হাসান নিয়ে থাকেন ৩ লাখ পর্যন্ত। ডন , ড্যানি সিডাকের পারিশ্রমিকও ছবি প্রতি এক থেকে দেড়লাখ টাকা।

শিবা সানু, ডিজে সোহেল, জাহিদ, শিমুল খানদের পারিশ্রমিক এক লক্ষ টাকার নিচে।

সূত্রঃ বাংলা ইনসাইডার

ধন্যবাদ, itdoctor24.com এর সাথেই থাকুন।

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)