ইলেক্ট্রিক্যাল সার্কিট এন্ড মেশিন জব নংঃ-১ RLC seris circuit

0
768

Objective :

১। RLC সিরিজ সার্কিট কীভাবে তৈরি করা হয় ,তা জানা।

২। একটি RLC সিরিজ সার্কিটের রেজিস্যান্স ,ক্যাপাসিট্যান্স ,ইন্ডাকট্যান্স এর মান নির্ণয়করণ।

৩।RLC সিরিজ্ সার্কিটের ভেক্টর ডায়াগ্রাম অংকন করা

তত্ত্বঃ

রেজিস্ট্যান্সঃ পরিবাহীর মধ্য দিয়ে কারেন্ট প্রবাহের সময় পরিবাহী পদার্থের যে ধর্ম বা বৈশিষ্ট্যের কারণে তা বাধাগ্রস্থ হয় তাকেরেজিস্ট্যান্স বলে।

ক্যাপাসিট্যান্সঃক্যাপাসিটর অর্থ ধারক । একে অনেকটা রিচার্জেবল ব্যাটারির সাথে তুলনা করা যায় । পার্থক্য শুধু এটাই যে, এর চার্জ ধরে রাখার ক্ষমতা অনেক কম । হতে পারে সেইটা এক সেকেন্ডের হাজারভাগের অনেক কম সময় । ক্যাপাসিটরের এই চার্জ ধরে রাখার ধর্মকে ক্যাপাসিট্যান্স বলে ।এর প্রতীক C,একক F.ক্যাপাসিটরের কারেন্ট চলাচলের বাধাকে ক্যাপাসিটিভ রিএক্ট্যান্স Xc বলে…

Xc=1/2pi*fC যেখানে f -frequency c- capacitance

ইন্ডাক্ট্যান্সঃ এটি কয়েলের এমন একটি বিশেষ ধর্ম যা কয়েলে প্রবাহিত কারেন্টে-এর হ্রাস বা বৃদ্ধিতে বাধা প্রদান করে। ইন্ডাকট্যান্স’এর প্রতীক L এবং এর একক Henry ।

ইন্ডাক্টিভ জনিত কারণে কারেন্ট চলা চলের বাধাকে ইন্ডাকটিভ রিএক্ট্যান্স(XL) বলে।একক ওহম ।XL=2*pi*fL   … L হচ্ছে ইন্ডাক্ট্যান্স।।

ইম্পিড্যান্সঃভোল্টেজ প্রয়োগের ফলে বিদ্যুৎ প্রবাহিত হলে সার্কিটে যে মোট বিপরীত ক্রিয়া বা বাধা কাজ করে তার গণনায় হল ইলেক্ট্রিক্যাল ইম্পিড্যান্স।

RLC সার্কিটের ক্ষেত্রেঃ

সুত্রঃ

Vectore Diagram:

Equipment:

1.Proto-board,  2.  1 resistor,

3. 1 capacitor, 4.  1 inductor,  5.digital multi-meter,

6.function generator, 7.oscilloscope, and  8.wire leads.

9.drawing things

ডাটাশীটঃ

 

 

কাজের ধাপঃ

১।প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি ও মালামাল সংগ্রহের পর সার্কিট ডায়াগ্রাম অনুযায়ী সংযোগ দিতে হবে।

২। সর্বারহ  করার পূর্বে পুনরায় সার্কিট চেক করে নিতে হবে।

৩।প্রতিটি পাঠ সাবধানে নিয়ে ডাটা শিটে বসাতে হবে।

৪।ডাটা শিটে বসানো মান থেকে প্রয়োজনীয় তথ্য বের করতে হবে ।

৫।সুনির্দিষ্ট স্কেল অনুযায়ি ভেক্টর ডায়াগ্রাম অংকন করতে হবে।

৬।হিসেবকৃত কোনের মান ও অংকনকৃত  কোণের মান তুলনা করতে হবে।

সাবধানতাঃ

১। সর্বারহ  করার পূর্বে পুনরায় সার্কিট চেক করে নিতে হবে।

২।মিটারগুল্লো সংযোগ করার সম্য সঠিক মানের মিটার এবং সঠিক স্কেল অনুযায়ী সংযোগ করতে হবে।

৩।ক্যাপাসিটরে সংযোগ দেয়ার সময় লুজ সংযোগ থাকা চলবে না।

৪।ব্যবহারের অব্যহিত পরেই ক্যাপাসিটরকে ডিসচার্জ করে রাখতে হবে।

৫।পাঠ নেয়ার সময় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে…

৬।হিসেব করার সময় সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

মন্তব্য/উপসংহারঃ

 

 

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here