স্মার্ট হচ্ছেন নাকি অজান্তেই দূরে সরে যাচ্ছেন?

0
444

আশা করি আমাদের সকলের সাইট ট্রিকবিডি এর সাথে থেকে ভালোই আছেন।আমিও আলহামদুলিল্লাহ ভালো। অনেকদিন পর ফিরলাম পোস্ট জগতে পোস্ট নিয়ে।আমার জন্য দোয়া করবেন।

আমার ২২ তম পোস্ট এ শুভেচ্ছা।
আপনি যদি এই পোস্ট এর বিষয় বস্তু কিছুটা অন্যরকম।সবাই কম বেশি জানেন।

আপনাদের কে জ্ঞান দিবো বলে আমি পোস্টটি করি নি।বরং আমাদের সকলের জীবন বৈচিত্র থেকেই কিছু তুলে ধরলাম। notging else

তবুও পড়তে পারেন কিন্তু দয়া করে বাজে কমেন্ট করবেন না প্লিজ।

এডমিন ভাইও বলে –
জানলে জানাও না, জানলে জানো।
তাই খারাপ কমেন্ট এর কোন প্রয়োজন নেই বললেই চলে।খারাপ কমেন্ট একজন টিউনার এর পরবর্তি পোস্ট করার আগ্রহ কমিয়ে দেয়।

ভার্চুয়াল লাইফ এ আমরা নিজেদের কে স্মার্ট ভাবে তুলে ধরতে চাই।সেই জন্য আমাদের নিজেরাই গোপনে গোপনে কত চেষ্টাই না করি আরো বেশি স্মার্ট হওয়ার জন্য।

স্মার্ট মানে কি শুধু ফেসবুক টুইটার,ইউটিউব ইত্যাদিতে ভালো ফ্যান ফলোয়ারের লাইক, কমেন্টস ইত্যাদির মালিক হওয়াকে বুঝায়?

-নিশ্চই না।
তবুও অনেক অনেক চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ভার্চুয়াল জগতে বড় হিসেবে গন্য হওয়ার জন্য।

তবে কেনো আপনি নিজের পারিপার্শ্বিক জিবনে সৎ -ভালো ব্যক্তি হতে সমান চেষ্টা করতে পারছেন না??

তবে আপনি ও পারেন ধীরে ধীরে আলাদা ব্যক্তিত্ব গড়তে।

আমি একটা জিনিস খুব সহজ ভাবে বলতে চাই যে শুধু ভালোমানের খেলোয়াড়, নায়কীয় চেহারা, শারীরিক গঠন,নাট্যকার, হাস্য রসিক,ফ্লিমি ভাব-সাব দিয়েই যে শুধু জনপ্রিয় হওয়া যায় সেটা কিন্তু নয়।হয়তো এসব থাকলে মানুষ এর কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠবেন সহজেই।কিন্তু মানুষের কাছে আন্তরিক ভাবে আপনি কতোটা জনপ্রিয় তা নিজেই একবার ভাবুন।

আমরা একদিক দিয়ে জনপ্রিয় হতে হতে আরেকদিক থেকে অনেকটা দূরে সরে যাচ্ছি,

ইসলামিক রীতিনিতি,গুরুভক্তি,বাবা মায়ের সেবা,মার্জিত আচার, শ্রমজীবীদের মূল্যায়ন দেয়ার মানসিকতা,শিক্ষক দের সম্মান-শ্রদ্ধা, প্রতিবেশি,সমাজ সেবা,পারস্পরিক সহযোগিতার মনোভাব, সম্মান ও স্নেহ করার মানসিকতা,ভালো স্রোতা/বক্তা,সামাজিক আইন কানুন,দায়িত্ব , কর্তব্য ইত্যাদি সহ যাবতীয় সকল সৎ গুন ও দায়িত্ব কর্তব্য থেকে আমরা ক্রমশ দূরে সরে যাচ্ছি।

কেননা এখন আমাদের শুধু চিন্তা এই যে, কখন আল্যার্মের শব্দে ঘুম থেকে উঠবো
, কোন না কোনভাবে ধুচমুচিয়ে রেডি হয়ে স্কুল/অফিস /কর্মস্থলে যাবো আর সেখান থেকে কিভাবে নিরাপদে বাসায় এসে ফেসবুক/টিভি/কম্পিউটার ইত্যাদিতে মুখ গুজিয়ে ঘরে বসে থাকবো।

আর কোন চিন্তা করার মতো সময় নাই তাইনা?

প্রশ্নো রইলো:-

সত্যিই কি সময় নেই। নাকি যেই সময়টা আছে তাকে সময় হিসেবে গন্য করছি না।বরং এটাকে ভার্চুয়াল সময়ের সাথে জুড়ে দিচ্ছি??

আচ্ছা ধরলাম আজকে বা কালকে সময় নেই।কিন্তু সেটা তো প্রতিদিনই যে সময় নেই এরকম তো হতে পারে না।

আর আমরা ” সময় ” শব্দাটার অনেক অপব্যবহার করি।কি কি ভাবে অপব্যবহার করি তা হয়তো নিজেরাই ভালো জানি।

মনুষ্যত্ব থেকে আমরা কেনো যে দূরে যাচ্ছি তার কারনের হয়তো অভাব নেই।

তাছাড়া কত ধরনের অন্তরায় যে লুকিয়ে আছে তা আমরা নিজেরাই ভালো বলতে পারবো।

আমি শুধু বলতে চাই স্মার্ট তারা না যারা ভার্চুয়াল লাইফ এ সারাদিন ডুকে থাকে।সত্যি বলতে এই কথাটা সবাই জানি কিন্তু মেনে নিতে পারি না।

আসুন সবাই একটু একটু করে সচেতন হই।সবার সাথে মিশে হাতে হাত রেখে আমরা সকলেই ভালো মানুষ হিসেবে বড় হয়ে উঠি।

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)