হঠাত করেই ব্লু হোয়েল গেমস এর ভয়ংকর শব্দ শোনা গেলো আমার কম্পিউটারে

0
1332

আস সালামু আলাইকুম, আশা করি সবাই ভাল আছেন। আর আমার ব্লু হোয়েল ভয়ংকর শব্দ  টাইটেল দেখে অবশ্যই অবাক হয়ে গেছেন তাই না? আর অবাক হওয়ার কথাই। আমি নিজেই অবাক হয়ে গিয়েছি। তাই তো আপনাদেরও একটু অবাক করে দিলাম এই পোস্ট টি করে। আসুন জেনে নিই হঠাত করেই আমার কম্পিউটারে ব্লু হোয়েল গেমস এর শব্দ শোনার রহস্য টা।

আসলে এই ব্লু হোয়েল গেমস এর নিউজটা যেইভাবে সোস্যাল মিডিয়া, আর গনমাধ্যম বিশেষ করে টিভিতে প্রচার হচ্ছে, সেটা দেখে মনের মধ্যে এক রকমের আতংক কাজ করতেই পারে। এটাই স্বাভাবিক😜😜😜। কিন্তু আসলে এই আতংকটা পুড়াই ভুয়া একটা আতঙ্ক। কারণ অরিজিনাল ব্লু হোয়েলের লিঙ্ক ফেসবুক,গুগল , সবাই তাদের ব্ল্যাক লিস্টে ফেলে রেখে দিয়েছে। তাই ভুল করেও কেউ ঐ লিঙ্কগুলো আপনাকে ফেসবুকের বা গুগল প্লাসের বা হ্যাংআউট এর ইনবক্সে দিতে পারবে না।  তাই যারা চাপা মারে যে, ব্লু হোয়েলের অরিজিনাল লিঙ্ক পেয়ে তারা আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে তারা সব মিথ্যা বলতেছে।  আর আপনিও যদি খেলে থাকেন তাহলে সেটাও ভুয়া একটা গেমস খেলতেছেন। গতকাল আমাকে একটা লিংক দিয়েছিল। আমি তো হাসতে হাসতে শেষ।

যাইহোক, রাত ৯টা থেকে ১০টার ভিতরে নাকি লিঙ্ক ফেসবুকে শেয়ার হওয়ার কথা ছিল। আমার ইনবক্সে ২টা লিংক অবশ্য এসেছিল। যেহেতু ফেসবুক সেগুলোকে ব্ল্যাক লিস্টে রেখেছে তাই পুরো লিঙ্ক কখনই আসবে না। তাই আপনার টেনশনের কোনো কারণ নেই। আর যেই লিংকগুলো এসেছে সেগুলো নিয়েও আমার সন্দেহ এটাই যে, ঐ লিংকগুলোও ভুয়া।

এইবার আসল কথায় যাই, আসলেই কি আমার কম্পিউটারে ব্লু হোয়েল গেমস এর সাউন্ড শোনা গেছে? আমি যেটা বললাম আমি যতই বলি ব্লু হোয়েল আসা কোনোভাবেই সম্ভব না। কিন্তু যেইভাবে আতংক চারদিকে ছড়ানো হয়েছে তো মনের ভিতর মনের অজান্তেই একটা ভয় কাজ করে।  তাই গতকাল যখন আমি ইয়ারফোন লাগিয়ে কম্পিউটার চালাচ্ছিলাম তখন হঠাত করেই সেই ব্লু হোয়েল বা নীল তিমির পানি নাড়ানোর সাউন্ড পেলাম । একবার নয়, দুইবার নয় কিছুক্ষণ পর পর ই পাচ্ছিলাম। আর তার আগেই আমার কাছে ঐ লিংকগুলো এসেছিল। আমি তো ভয় পেয়ে গেলাম । আরে এ কি আজব কান্ড ব্লু হোয়েল কি আমার কম্পিউটারেই ঢুকলো অব শেষে?😜😜😜

যাইহোক চলুন এবার জেনে নিই আসলে কি ঘটেছিল আমার কম্পিউটারে

উইন্ডোজ ১০ এর লেটেস্ট আপডেট এ তারা কিছু সাউন্ড এড করেছে। যদি কোনো উলটা পালটা চেঞ্জ বা ইরর ম্যাসেজ সো করে তখন  সে ক্ষেত্রে সেই নীল তিমি পানি নাড়াচাড়া করলে যেমন শব্দ হয় তেমনি একটা সাউন্ড হয় । আর আমিও কিছু তাড়াতাড়ি করে উলটা পালটা চাপ মেরেছিলাম তাড়াহুরো করতে গিয়ে । আর একারণেই কিছুক্ষণ পর পর সাউন্ড হচ্ছিল।

কেন করলাম এই পোস্ট?

কারণ তেমন বড় কিছু না। সময় থাকতে নিজের মাথাটাকে খাটান। অযথা আন্দাজী একটা নিউজ যেইভাবে ফেসবুকে আপনারা ফরওয়ার্ড শুরু করেন। তাতে আপনারা সমাজের মানুষগুলোকে বিপদে ফেলে দেন। তাই আগে যাচাই করুন। পরে শেয়ার করুন।

যাইহোক, কষ্ট দেয়ার জন্য দুঃখিত। ভুল হলে ক্ষমা করবেন। আর টেকনোলজি বিষয়ের যেকোনো সত্য খবর জানতে আমাদের সাথেই থাকুন।

আল্লাহ হাফিজ।

‘ব্লু হোয়েল’ আসক্ত আরও ২ কিশোরের খোঁজ

 

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)