শেখ চাল্লীর কাহিনী

5
334

আল্লাহ্‌র ওলীদের সান্নিধ্য যাবো না, তাদের কথা অনুযায়ী চলবো না, তাদের তিরস্কার শুনবো না, অর্থাৎ কোন কাজ করবো না অথচ আল্লাহ্‌র ওলী হয়ে যাবো—এরূপ আসা করা শেখ চাল্লীর কল্পনা মাত্র। শেখ চাল্লীর একটি কাহিনী রয়েছে।

এক ব্যাক্তি তেলের একটি হাঁড়ি বহন করার জন্য কুলির খোঁজ করছিল। হঠাৎ শেখ চাল্লীকে দেখতে পেলো। বললো, “আমার এ তেলের হাঁড়িটা বাড়ী পৌছে দাও, তোমাকে দুইটি পয়সা দিব।“

শেক চাল্লী আনন্দিত হয়ে তেলের হাঁড়ী মাথায় নিয়ে লোকটির  পিছনে পিছনে হাঁটতে লাগলো।

মনে মনে চিন্তা করল—তেলের হাঁড়ি পৌঁছে  দিয়ে দুইটি পয়সা পাবো, তা দিয়ে বাবসা করাই দরকার। দুই পয়সায় দুইটি ডিম ক্রয় করবো। ডিম দুইটি প্রতিবেশীর মুরগীর নিচে রেখে তা দিব। দুইটি বাচ্চা ফুটবে। একটি মোরগ, একটি মুরগী। এ জোড়া থেকে অনেকগুলো ডিম হবে। সেই ডিম থেকে অনেকগুলো মুরগী হবে। সেই মুরগী বিক্রি করে একটি বকরি ক্রয় করব। বকরী থেকে অনেকগুলো বাচ্চা হবে। বকরীর পালে মাঠ পূর্ণ হয়ে যাবে। অতিরিক্ত বকরী বিক্রি করে গরু ক্রয় করব। গরুতে যখন মাঠ পূর্ণ হয়ে যাবে তখন অতিরিক্ত গরু বিক্রয় করব। মহিষ ক্রয় করব। তারপর আরবি ঘোড়ার বাবসা করব। কোন ধনী ব্যাক্তি মেয়ে বিয়ে করে নিয়ে আসবো। ছেলে ভূমিষ্ঠ হবে। সন্তান যখন বর হবে তখন আমাকে ডাকতে আসবে– “আব্বাজান আম্মাজান আপনাকে ডাকছেন”। তখন আমি ধমক দিয়ে বলবো, ‘ধেৎ আমি এখন যেতে পারবো না। কাজের চাপে আমার অবসর নেই। এ ধেৎ বলার সময় অসতর্ক মাথা যেই দোলা খেয়েছে অমনি মাথার হাঁড়ি পরে গিয়ে সব তেল মাটিতে গরাতে আরাম্ভ করে দিয়েছে।

মালিক  ক্রোধে ফেটে পড়লো—“তোর কাণ্ড জ্ঞান নাই, আমার এতগুলো তেল নষ্ট করলি ?”

শেখ চাল্লী বলল, “আরে সাহেব রাখেন আপনার তেল! আপনার তো সামান্য তেল নষ্ট হয়েছে। আর আমার? আমার মনোরম দালান, বিরাট বাবসায়, লক্ষ-কোটি টাকা আর সমস্ত পরিবার ধংস হয়ে গেছে সেদিকে একটুও দেখলেন না? “

কিন্তু তবুও এ শেখ চাল্লীর মত অনর্থক কল্পনাকারী শেষ বিচার দিবসে দেখতে পাবে—বাবসায়ও নাই, হাতিও নাই, ঘোড়াও নাই, মুরগীও নাই। দেক নাই, বিস্কুটও নাই, মাখন নাই—মোটকথা কোন কিছুই নাই। জা কিছু ছিল সবই স্বপ্ন ছিল। কেউ অহংকার করেছে এলেমের, কেউ অহংকার করেছে তাকওয়ার। সেখানে প্রকৃত অবস্থা জানা যাবে। অনর্থক কল্পনায় বিভোর থেকে আল্লাহ্‌কে ভহুলে যাওয়ার ফল বুঝা যাবে। আরে হতভাগা, কি রয়েছে এ সাময়েকের জীবনে?

“ যা-কিছু তোমাদের নিকত রয়েছে সব নিঃশেষ হয়ে যাবে। শুধু অবশিষ্ট থাকবে (তোমাদের সওয়াবগুলো) যা’ আল্লাহ্‌র নিকট (জমা) আছে।

সুত্রঃ মুসলমানের হাসি। লেখক, হযরত মাওলানা আশরাফ আলী থানভী (রঃ)

পোস্টটি প্রয়োজনীয় হলে শেয়ার করুন।

ধন্যবাদ, itdoctor24.com এর সাথেই থাকুন।

5 COMMENTS

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here