Automatic Vehicles Security System(New Technology)

0
306

রাস্তায় নিরাপদ থাকতে

মাহবুবুল হাসানের রোবট নিয়ন্ত্রিত গাড়ির প্রকল্পের নাম ‘অটোমেটিক ভেহিকল সিকিউরিটি সিস্টেম’। মাহবুবুল হাসান সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের অটোমেশন রিসার্চার হিসেবে আছেন। রোবট, গাড়িসহ বিভিন্ন স্বয়ংক্রিয় প্রযুক্তি নিয়ে গবেষণা করাই তার কাজ। এই প্রকল্পে তার সঙ্গে কাজ করেছেন সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের নওরোজ ইমতিয়াজ, রাজিব প্রধান ও শাকিল হোসেন। এটি অ্যান্ড্রয়েড কার। কোন রাস্তায় যানজট আছে, সেটি গ্রাফের গাড়িতে অবস্থানরত ব্যক্তির মোবাইলে দেখা যাবে। তবে সেজন্য রাস্তায় কতগুলো সেন্সর লাগানো থাকতে হবে। আর গাড়িতে অবস্থানরত ব্যক্তির মোবাইলে থাকবে ‘আরডু’ নামের একটি সফটওয়্যার। এটি অন করলেই কোন রাস্তায় কেমন জ্যাম, সেটি দেখা যাবে।

 

নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর পাসওয়ার্ডের মাধ্যমে গাড়ির দরজা খোলা ও বন্ধ করা যাবে। গাড়ির মালিকের কণ্ঠস্বরের মাধ্যমে দরজা-জানালা বন্ধ করার জন্য আছে ভয়েস রিকগনিশন সেন্সর। নির্দিষ্ট দূরত্বে গাড়ির গতি-কমানো-বাড়ানোর জন্য আছে আলট্রাসনিক সেন্সর। এ ছাড়া গাড়ি চুরি রোধ করার জন্য এর সামনে-পিছনে ছোট ছোট মিনি ক্যামেরা সংযুক্ত থাকবে। এগুলো আসলে ইন্টারনেট প্রটোকল ক্যামেরা। গাড়ির মালিকের মোবাইল ফোনে জিএসএম সিস্টেমের সঙ্গে সংযুক্ত সফটওয়্যার থাকবে। আর সেই জিএসএম সিস্টেমটি গাড়ির ইঞ্জিনের সঙ্গে সংযুক্ত থাকবে। ফলে তিনি সেটিতে গাড়ি বন্ধ করে দেওয়ার কমান্ড দিলে গাড়িটি বন্ধ হয়ে যাবে। এ ছাড়া এর বিমা, ফিটনেস ইত্যাদি বিষয় গাড়ির মালিককে মনে করিয়ে দিতে ‘ফিটনেস রিমাইন্ডার সিস্টেম’ নামে একটি ডিভাইস গাড়ির লুকিং গ্লাসের পাশে লাগানো থাকবে। এটিও মাহবুবের তৈরি। এছাড়া আপনাআপনি অগ্নিনিরোধক ব্যবস্থাও গাড়িতে রেখেছেন তিনি। তার এই ‘অটোমেটিক ভেহিকল রিমাইন্ডার সিস্টেম’ বিশ্বব্যাংকের স্কিল কম্পিটিশনে দ্বিতীয় হয়েছে।

Please comment Here (ভাল লাগলে কমেন্ট করুন)